SATYAJIT DAS - (Habiganj)
প্রকাশ ১২/০১/২০২২ ০৭:২৫পি এম

Covid-19 in Tollywood: ভারতীয় টলিউড ও সঙ্গীতাঙ্গনে কোভিডের ভয়াল থাবা

Covid-19 in Tollywood: ভারতীয় টলিউড ও সঙ্গীতাঙ্গনে কোভিডের ভয়াল থাবা
ad image
ভারত উপমহাদেশের রাজ্য গুলোতে কোনওভাবেই সংক্রমণ কমছেনা,বরং সেই গ্রাফ উর্ধ্বমুখী। প্রতিদিন ফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। করোনার প্রথম ঢেউয়ের সময় থেকেই প্রসেনজিৎ নিজেকে পুরোপুরি গুটিয়ে নেন। সামান্য কাজ ছাড়া এই সময়কালে বাড়ি থেকে একদমই বাড়ি থেকে না বেরোলেও করোনা আক্রান্ত হয়েছেন তিনি। তাঁর উপসর্গ খুব বেশি না থাকলেও মৃদু উপসর্গ রয়েছে। সেই কারনেই তিনি হোম আইসোলেশনে থাকবেন। 

বুধবার(১২ জানুয়ারি) সকাল থেকেই দেখা গেছে যে অভিনেতা স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় এবং গায়ক রুপম ইসলাম সপরিবারে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়েছেন। এর পাশাপাশি টলিউডের অন্যান্য অভিনেতা যেমন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, দেব,রুক্মিণী এবং পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের মত অভিনেতারা করোনা থেকে সেরে উঠেছেন এবং আবার কাজে যোগ দিয়েছেন। এবার আক্রান্ত হয়েছেন অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়। নিজেই টুইট করে এই খবর জানিয়েছেন তিনি। টুইতে তিনি লিখেছেন যে দুঃখজনকভাবে তিনি কোভিড ক্রান্ত হয়েছেন এবং ডাক্তারের সঙ্গে আলোচনা করে তিনি বর্তমানে হোম আইসোলেশনে রয়েছেন এবং তিনি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবেন এই আশা করেছেন টুইটে।

টলিউডেও একের পর এক শিল্পী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। ইতিমধ্যেই সেরে ওঠার পথেও অনেকেই। নেগেটিভ রিপোর্ট নিয়ে কাজে যোগ দিচ্ছেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়,ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত,দেব,রুক্মিণী। সেরে ওঠার পথে রাজ চক্রবর্তী,শুভশ্রী। কিন্তু এবার করোনা আক্রান্ত হলেন স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। বুধবার(১২ জানুয়ারি) সকালে স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় নিজের ইনস্টা হ্যান্ডেলে স্টোরির মাধ্যমে এই খবর দিয়েছেন।

অভিনব ভাবে স্বস্তিকা লেখেন ‘শুনছিলাম এবারও যাঁদের করোনা হচ্ছে না তাঁরা নাকি যমেরও অরুচি,যাক আমি আর যমের অরুচির লিস্টে নেই।’ এরপর মজা করে যমের সঙ্গে স্বস্তিকার একটি আলোচনা পর্বও লেখেন। যেখানে যম তাঁকে প্রশ্ন করছে আপনি কি কো-ভার্জিন? প্রসঙ্গত যাঁরা এখনও পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হন নি, তাঁদের কো-ভার্জিন বলা হচ্ছে। স্বস্তিকার উত্তর- আমি নেগেটিভ স্যার।

মঙ্গলবার(১১ জানুয়ারি) লতা মঙ্গেশকরকে ভর্তি করা হয়েছে মুম্বইয়ের হাসপাতালে। বয়সজনিত কারণে চিকিৎসকরা কোনও ঝুঁকি নিতে চান নি। তাই আপাতত আইসিইউ-তে চিকিৎসাধীন বর্ষীয়ান শিল্পী। অন্যদিকে করোনা আক্রান্ত হয়ে হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন সাহিত্যিক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ও।ঐদিকে ইমন চক্রবর্তী তাঁর দরজায় খিল দিলেন। হ্যাঁ নিজের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর খানিকটা এভাবেই তাঁর ফ্যানদের সামনে নিয়ে এলেন জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত সঙ্গীতশিল্পী। তাঁর কণ্ঠে ‘তুমি অন্য কারোর সঙ্গে বেঁধো ঘর’ গানটি জনপ্রিয়তার তুঙ্গে পৌঁছেছিল। করোনার তৃতীয় ঢেউ আসতে হঠাৎই সেই গানের দুটি লাইন দিয়ে মিম তৈরি হয়। ‘আমার দরজায় খিল দিয়েছি,আমার দারুণ জ্বর’ এই লাইন বিভিন্ন টাইমলাইনে ঘুরছিল। তা এবার নিজের টাইমলাইনে তুলে ধরলেন ইমন। ইমনের স্বামী সঙ্গীত পরিচালক নীলাঞ্জন আগেই আক্রান্ত হয়েছেন, জ্বর ছিল তাঁর। ইমন আগে টেস্ট করলে তা নেগেটিভ আসে। ফের উপসর্গ থাকায় করোনা পরীক্ষা করান ইমন। অবশেষে গত রবিবার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। নিজেই সোশাল মিডিয়ায় পোস্ট করে এই খবর জানিয়েছেন ইমন চক্রবর্তী। ভারতীয় গণমাধ্যম ইন্ডিয়া টাইমস তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন-‘মৃদু উপসর্গ রয়েছে, তবে সারা শরীর ব্যাথা। কখনও কখনও মাথা তুলতে পারছি না,ক্লান্ত লাগছে।আইসোলেশনে রয়েছি আমি নীলাঞ্জন দুজনেই।’

আজ বুধবার(১২ জানুয়ারি) সকালেই করোনা আক্রান্ত রূপম ইসলাম ও তাঁর পরিবার। তিনজনেই রয়েছেন হোম আইসোলেশনে। স্টুডিওয় কাজ করার সময় করোনা আক্রান্ত হয়েছিলেন তাঁদের তিনজন কর্মী। এরপর থেকেই গত সাতদিন ধরে আইসোলেশনে রয়েছেন রূপম ও তাঁর পরিবার। রূপমের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন ‘উপসর্গ রয়েছে। আমার জ্বর রয়েছে। আমার স্ত্রী রূপসার জ্বর কমেছে,ছেলের বেশ জ্বর আসছে। ওষুধ খেয়ে জ্বর কমাচ্ছি। আর কাজের মধ্যেই রয়েছি। ডাক্তারের পরামর্শ মেনে চলছি। সাত দিন ধরে কোয়ারেন্টিনে থেকেও করোনা হবে ভাবিনি। এখন আইসোলেশনে থাকছি।’ এছাড়াও তিনি বলেন ‘আমার একটি বই বইমেলায় বেরোনোর কথা,সেটির শেষ পর্যায়ের কাজ চলছে। তা নিয়েই রয়েছি।’দেশ থেকে রাজ্য সর্বত্র করোনা গ্রাফ উর্ধ্বমুখী। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। টলিউডেও একের পর এক শিল্পী করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।আবার সেরে ওঠার পথেও অনেকেই। নেগেটিভ রিপোর্ট নিয়ে কাজে যোগ দিচ্ছেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত,দেব,রুক্মিণী। সেরে ওঠার পথে রাজ চক্রবর্তী, শুভশ্রী।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ