Md babul hossain - (Joypurhat)
প্রকাশ ২৯/১২/২০২১ ০৬:২৫এ এম

Train ticket: পাঁচবিবিতে ট্রেনের টিকিট নিয়ে বিড়ম্বনা

Train ticket: পাঁচবিবিতে ট্রেনের টিকিট নিয়ে বিড়ম্বনা
ad image
জয়পুরহাটের পাঁচবিবি রেল ষ্টেশনে বিভিন্ন আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিটের অপ্রতুল বরাদ্দ ও টিকিট বিক্রয়ে অনলাইন ব্যবস্থা না থাকায় হয়রানী ও ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছে যাত্রী সাধারণ। যাত্রীদের চাহিদামত টিকিট দিতে না পারার কারণে ষ্টেশনে সংশ্লিষ্টদের সাথে মাঝে মধ্যেই বাগবিতন্ডার ঘটনা ঘটছে।

এছাড়া খুলনা যাতায়াতকারী রূপসা ও সীমান্ত এক্সপ্রেস এবং ঢাকা যাতায়াতকারী নীলসাগর ও কুড়িগ্রাম আন্তঃনগর ট্রেনের যাত্রা বিরতী না থাকার কারণে চরম ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছে স্থানীয় যাত্রীগণ। সমস্যাগুলো সমাধানের জন্য রেলের উর্ধ্বতন বিভাগে একাধিকবার অবহিত করা হলেও আজো কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে চিলাহাটি থেকে রাজশাহী যাতায়াতকারী তিতুমীর ট্রেনের পাঁচবিবির যাত্রীদের জন্য রাজশাহীর ৯টি সীট বরাদ্দ রয়েছে। মাঝের কোন ষ্টেশনের জন্য সীট নেই। এই ট্রেনে চিলাহাটির সীট রয়েছে ৫টি। বরেন্দ্র আন্তঃনগর ট্রেনের রাজশাহীতে ৯টি, নাটোরের ৫টি এবং সান্তাহারের জন্য বরাদ্দ রয়েছে ১০টি সীট। যা প্রয়োজনের তুলনায় কম। ট্রেন দুটির যাত্রীরা পর্যাপ্ত টিকিট না পাওয়ায় উভয় দিকের প্রায়দিনই অর্ধশতাধিক যাত্রী বিনা টিকিটে বা বিশেষ ব্যবস্থায় ভ্রমন করছেন বলে একটি সূত্র জানায়।

ঢাকা অভিমুখী একতা আন্তঃনগর ট্রেনের ঢাকার জন্য বরাদ্দ রয়েছে ২৭টি এবং পঞ্চগড় অভিমুখী একই ট্রেনের দিনাজপুর ও পঞ্চগড়ের জন্য রয়েছে ২০টি সীট। ঢাকা অভিমুখী দ্রæতযান আন্তঃনগরে ১৮টি ও পঞ্চগড়, দিনাজপুরের জন্য রয়েছে মাত্র ১০টি সীট। আবার রাজশাহী যাতায়াতকারী বাংলাবান্ধা আন্তঃনগর ট্রেনটি পাঁচবিবি রেল ষ্টেশনে যাত্রাবিরতী থাকলেও বেশ কিছুদিন থেকে যাত্রীদের টিকেট দেওয়া হচ্ছে না। কারণ হিসাবে জানা যায় শুধুমাত্র সান্তাহারের জন্য ৫টি সীটের টিকিট বিক্রি হলেও বগি বিকল থাকার কারণে রাজশাহীর টিকিট বিক্রি বন্ধ রয়েছে।

পাঁচবিবি রেলষ্টেশনে যাত্রাবিরতীকারী সকল আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট প্রয়োজনের তুলনায় বরাদ্দ কম থাকায় পাঁচবিবি, হিলি, ঘোড়াঘাট, গোবিন্দগঞ্জসহ বেশ কিছু এলাকার যাত্রীদের বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে প্রতিনিয়তই। অনেক যাত্রীদের পার্শ্ববর্তী ষ্টেশন থেকে টিকিট সংগ্রহ করতে হচ্ছে। এ রেলষ্টেশনে ৫টি আন্তঃনগর ট্রেনের যাত্রাবিরতী থাকলেও কম্পিউটারাইজ পদ্ধতিতে টিকিটের কোন ব্যবস্থা আজো চালু না হওয়ায় একাধিক যাত্রীদের কাছে একই সীটের টিকিট বিক্রির অভিযোগ পাওয়া যায়। এছাড়াও অধিক মূল্যে বাইরে থেকে টিকেট সংগ্রহ করতে হচ্ছে যাত্রীসাধারণকে।

পাঁচবিবি রেলষ্টেশনের মাষ্টার আব্দুল আউওয়াল হোসেন বলেন, কম্পিউটার সিস্টেম চালু না হওয়ায় মাসে দু’একটি টিকিটের সমস্যা ঘটছে। বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিম অঞ্চলের চীফ কমার্সিয়াল ম্যানেজার মোঃ আহসান উল্লাহ ভুঁইয়া জানান, নতুন বগির (কোচ) সংযোজন করা সম্ভব না হওয়ার কারণে আপাতঃত সীট বাড়ানো সম্ভব হচ্ছে না।

তবে ষ্ট্যান্ডিং টিকিটের জন্য উপরে যোগাযোগ করা হচ্ছে। খুব শীঘ্রই অনলাইন টিকিটের জন্য পাঁচবিবি রেল ষ্টেশনে কম্পিউটার সরবরাহ করা হবে। বাংলাবান্ধা আন্তঃনগন ট্রেনের বগিটি মেরামতের কাজ চলায় পাঁচবিবি রেল ষ্টেশনের টিকিট বিক্রি বন্ধ রয়েছে।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ