আসাদুজ্জামান শেখ (সোবহান)( - (Bagerhat))
প্রকাশ ৩০/১১/২০২১ ০৯:০১পি এম
বাগেরহাট সদর উপজেলার রাখালগাছি ইউনিয়নে ৬টি কাচা-পাকা রাস্তা দীর্ঘ দিনেও পূনঃ সংস্কার বা মেরামত করা হয়নি। যে কারণে জনবহুল ও গুরুত্বপূর্ণ এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করা এখন চরম ঝুঁিক হয়ে পড়েছে। স্থানীয় এলাকাবাসি ও শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীরা গুরুত্বপূর্ণ ও জনবহুল এই রাস্তা গুলি মেরামত করার জন্য উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের কাছে বারবার আকুতি-মিনতি করলেও তাঁরা তাঁতে কোন কর্ণপাত করছেন না। ফলে ঐ রাস্তা গুলি দিয়ে চলাচলরত হাজার হাজার জনগনকে পোহাতে হচ্ছে সিমাহীন দুর্ভোগ।

জানা গেছে, রাখালগাছি ইউনিয়নের চুলকাটি ভায়া মাথাভাঙ্গা সড়কের মোড়লপাড়া ত্রি-মোড় হতে সৈয়দপুর বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয় গামী ইটের সলিং প্রায় ২ কিলোমিটার রাস্তা, সৈয়দপুর দক্ষিনপাড়া শক্তি নারায়ন দাস এর বাড়ীর সামতে হতে স্কুল পর্যন্ত প্রায় ২ কিলোমিটার ইটের সলিং ও কাচা রাস্তা, আমির হাজরা রাস্তার মোড় হতে সৈয়দপুর ফকিরপাড়া আল মামুন টিপুর বাড়ীর সামনে হতে স্কুল পর্যন্ত প্রায় ২ কিলোমিটার কাচা রাস্তা, সৈয়দপুর উত্তরপাড়া মসজিদের সামনে হতে স্কুল পর্যন্ত ইটের সলিং ও কাচা প্রায় ২ কিলোমিটার রাস্তা, পুটিমারি গ্রামের মেগনিসতলা মোড় হতে স্কুল পর্যন্ত প্রায় ১কিলোমিটার ইটের সলিং ও কাচা রাস্তা ও দরি রসুলপুর গ্রাম হতে সৈয়দপুর স্কুল পর্যন্ত প্রায় প্রায় ২ কিলোমিটার ইটের সিলিং রাস্তা চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এই ইটের সলিং ও কাচা রাস্তা গুলির এমন অবস্থা যা নিজে চোখে না দেখলে অনুধাবন করা যাবেনা।

সরেজমিনে অনুসন্ধ্যান করে জানা গেছে, উপরোক্ত অধিকাংশ রাস্তা গুলি ব্রিটিশ আমলে নির্মাণ করা হয়েছে। তার পর হতে আর কোন দিন রাস্তা গুলি সংস্কার বা মেরামত করা হয়নি। আর না করার ফলে দুইটি স্কুল মসজিদ ও মাদ্রাসায় চলাচলকারী শতশত শিক্ষক শিক্ষার্থী সিমাহীন সমস্যার মধ্যে স্বঃস্বঃ শিক্ষা প্রতিষ্টানে ও বিভিন্ন গন্তব্যে চলাচল করতে বাধ্য হচ্ছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে বেশ কয়েকজন শিক্ষক শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসি অভিযোগ করে বলেছেন, বর্তমান সরকার এলজিইডি এলজিএসপি ওয়ানপার্সেন্ট বা এডিবি ফান্ড হতে গ্রাম্য রাস্তা গুলি মেরামত বা সংস্কার করলেও এই সমস্ত রাস্তার ক্ষেত্রে তা করা হয়নি। যে কারণে বছরের পর বছর স্থানীয় জনগনকে পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগে। অনেকে বলেছেন, রাস্তা গুলির এমনি শোচনীয় অবস্থা যে দিনের বেলায় বাইসাইকেল চালিয়ে যাওয়া তো দুরের কথা পায়ে হেঁটে চলাচল করাও অসম্বাব। জনগনের দুঃখ র্দুদশা লঘবে অতিদ্রæত চলাচলের অযোগ্য রাস্তা গুলি মেরামত বা পিচ ঢালা রাস্তায় উন্নত করার জন্য উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ