Monir
প্রকাশ ২৮/১১/২০২১ ০৭:৫১পি এম
নিজেকে অন্যদের থেকে আলাদা ভাবেন তিনি। চিন্তা করেন ঠিক অন্যদের উল্টো। তবে তার প্রমাণ দিতে পাল্টে ফেললেন নিজের চেহারাই। শরীরে অসংখ্য ফুটো করেছেন এক নারী। সাধারণ মানুষের পক্ষে যা সহজে করা নয়। কিন্তু কোনো রকম দ্বিমত ছাড়াই তা করেছেন ইলাইন।

ব্রাজিলিয়ান নাগরিক ইলাইন ডেভিডসন শরীরে সর্বোচ্চ সংখ্যক পিয়ার্সিং করিয়েছেন। এজন্য রেকর্ডও দখল করে নিয়েছেন নিজের নামে। ১৯৯৭ সালের জানুয়ারিতে তিনি প্রথম শরীরে ছিদ্র করেন। ৮ ই জুন ২০০৬ সাল পর্যন্ত মোট ৪,২২২ বার নিজের শরীরে ছিদ্র করেছেন এই নারী। এসব ছিদ্রে নানা ধরনের গয়না পরে থাকেন তিনি।


শুধু ছিদ্রই নয়, শরীরে অসংখ্যবার ট্যাটুও করেছেন এ নারী। এমনকি জিহ্বার মধ্যেও বর একটি ছিদ্র করেছেন তিনি। এসব কারণেই তিনি গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ডে নাম লিখিয়েছেন। তবে থেমে নেই শরীরে ছিদ্র করা। এখনো তা চালিয়ে যাচ্ছেন। ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে এই সংখ্যা দাঁড়ায় ১১ হাজার তিনটিতে।

ব্রাজিলিয়ান এ নারী একসময় রেস্তোঁরার মালিক ছিলেন। তাকে সবসময় উজ্জ্বল রঙের মেকআপ ঘুরে বেড়াতে দেখা যায়। মাথায় পরেন পালক এবং স্ট্রিমার। বর্তমানে তার বয়স ৫৬ বছর। ১৯৬৫ সালে জন্ম নেওয়া ইলাইন বিয়ে করেছিলেন। তবে ২০১২ সালে তার স্বামীর সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে যায়।

সূত্র: গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড

শেয়ার করুন

ad image

সম্পর্কিত সংবাদ