• 0
  • 0
Md Yousuf Monir
Posted at 13/08/2020 07:24:pm

হঠাৎ পরিবহনসংকটে চট্টগ্রাম ইপিজেডে কর্মরত পোশাকশ্রমিকেরা!

হঠাৎ পরিবহনসংকটে চট্টগ্রাম ইপিজেডে কর্মরত পোশাকশ্রমিকেরা!

বন্দরনগরী চট্টগ্রামের ইপিজেড এলাকায় হঠাৎ করে পরিবহন সংকটে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন যাত্রীরা। বৃহস্পতিবার (১৩ আগস্ট) বিকেলে হঠাৎ করে জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়কে পরিবহন সংকট হওয়ায় হাজার হাজার পোশাক শ্রমিক ও সাধারণ যাত্রীরা দুর্ভোগে পড়েছেন।


সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, পরিবহন সংকটে ভোগান্তির শিকার হাজার হাজার কর্মজীবী নারী পুরুষ। গুরুত্বপূর্ণ এই মোড়ে গাড়িতে উঠার জন্য রীতিমতো প্রতিযোগিতায়  নামতে হচ্ছে, যা দুর্ভোগের মাত্রাকে বাড়িয়ে দিচ্ছে। হঠাৎ করে একটি দুটি গাড়ি আসলেও সাধারণ ভাড়া থেকে তিনগুণ ভাড়া বেশি ভাড়া দাবী করছে।এ রুটে ৬,১০,১১ নম্বর বাস ছাড়াও লেগুনা রাইডার চলাচল করে।


মহানগরের পর্যাপ্ত পরিমাণ থাকলেও কতিপয় বাসচালক এবং মালিকের মিনরে তা সংকটে রূপ দিয়েছে। ৫৫ টি রুটে আঞ্চলিক পাসপোর্ট কমিটি (আরটিসি) চার হাজার চারশত ২৯ টি গাড়ী। তারপরও ঠিকমত নির্দিষ্ট রুটে গাড়ি চলাচল করছে না বলে জানান যাত্রীরা।


বিভিন্ন রুটে অনুমোদনপ্রাপ্ত গাড়ি সমূহ গার্মেন্টস সহ শিল্প কারখানায় রিজার্ভ সার্ভিস দেয় বলেও অভিযোগ তাদের। ফলে সকাল-সন্ধ্যা গাড়ির অপেক্ষায় দাঁড়িয়ে থাকতে পরিবহননির্ভর মানুষদের। এতগুলো গাড়ি অনুমোদনের পরেও গাড়ি গুলো গেল কোথায় প্রশ্ন জনমনে।


যাত্রীদের অভিযোগ, অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে কৃত্রিম সংকট তৈরি করেছে পরিবহন সংশ্লিষ্টরা। ইপিজেড থেকে বদ্দারহাট পর্যন্ত বিআরটি ২০ টাকা ভাড়া নির্ধারণ হলেও আদায় করা হচ্ছে ৫ড় থেকে ৬০ টাকা। 


বাস চালকদের দাবী, যানজটের কারণে কাস্টম থেকে ইপিজেডে দেখতে পাচ্ছেন না তাই হঠাৎ করে অনেক সংকট সৃষ্টি হয়েছে।


গার্মেন্ট কর্মী ইউসুফ মনির মনির ভূঁইয়া বলেন, গুরুত্বপূর্ণ সড়কে প্রায় সময়ই গাড়ির সংকট থাকে। তবে আজ অতিরিক্ত  সংকট। তারা অতিরিক্ত ভাড়া নিতে এই কৃত্রিম সংকট তৈরি করেছে।


রফিক নামের এক বাস চালক জানায়,এই রুটের ৬;১০;১১ নাম্বার গাড়ি অধিকাংশ গার্মেন্টস এর ডিজার্ভ করা গেছে। যার কারণে পরিবহনের সংকট সৃষ্টি হয়েছে।



শেয়ার করুন

সম্পর্কিত সংবাদ