বাগেরহাটে রিফাত হত্যায় তিনজন গ্রেপ্তার

বাগেরহাটের চিতলমারীতে পাঁচ বছরের শিশু রিফাত তালুকদারের হত্যাকাণ্ডে জড়িত অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই)। জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে রিফাত তালুকদারকে শ্বাসরোধে হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন মো. হাফিজুর রহমান তালুকদার (২৯) নামে এক আসামি।

মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) বাগেরহাট কার্যালয়ে এক প্রেস ব্রিফিং এ সাংবাদিকদের এই তথ্য জানানো হয়।

মো. হাফিজুর রহমান তালুকদার ওরফে ছোটো (২৯) জেলার চিতলমারী উপজেলার সাবোখালী গ্রামের আব্দুল হামিদ তালুকদারের ছেলে। একই উপজেলার চৌদ্দহাজারীগ্রামের শওকত তালুকদারের ছেলে ইকবাল তালুকদার (১৯) এবং আব্দুল হান্নান তালুকদারের ছেলে সাকিব তালুকদার (১৪)।

গত বছরের ২৭ নভেম্বর চিতলমারী উপজেলার সদর ইউনিয়নের চৌদ্দহাজারী গ্রামের জনৈক মুকুল হালদারের সুপারি বাগানের একটি ডোবা থেকে শিশু রিফাতের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত শিশু রিফাত তালুকদার চিতলমারী উপজেলার সদর ইউনিয়নের চৌদ্দহাজারী গ্রামের আব্দুল মান্নান তালুকদারের ছেলে।

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পুলিশ সুপার আতিকুর রহমান মিয়া বলেন, গত বছরের ২৭ নভেম্বর চিতলমারী উপজেলার সদর ইউনিয়নের চৌদ্দহাজারী গ্রামের জনৈক মুকুল হালদারের সুপারি বাগানের একটি ডোবা থেকে শিশু রিফাতের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এই ঘটনায় নিহতের বাবা চিতলমারী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। শিশু রিফাত হত্যা মামলাটি জানুয়ারি মাসে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্ত করতে দেওয়া হলে তারা তদন্তে নেমে মো. হাফিজুর রহমানকে গ্রেপ্তার করে। পিবিআই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে আদালতের কাছে রিমান্ড চাইলে আদালত চারদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। জিজ্ঞাসাবাদে হাফিজুর শিশু রিফাতকে হত্যার করা স্বীকার করে সোমবার বিকেলে বাগেরহাটের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সমীর মন্ডলের আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন। জমি সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জেরে পরিকল্পিতভাবে কয়েকজন মিলে শিশু রিফাতকে হত্যা করে বলে হাফিজুর স্বীকারোক্তি দেয়। তার দেওয়া স্বীকারোক্তি অনুযায়ি আরও দুইজনকে আমরা গ্রেপ্তার করি। হত্যাকাণ্ডে জড়িত আরও যাদের নাম এসেছে তাদের ধরতে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মতামত দিন

avatar