ছবির প্রাণ কে ছাপিয়ে গিয়েছে বিশাল জেঠওয়া

ছবির প্রাণ কে ছাপিয়ে গিয়েছে বিশাল জেঠওয়া
ছবির প্রাণ কে? অবশ্যই রানী’র অভিনয় অনবদ্য। তবে এক হিসেবে তাকেও ছাপিয়ে গিয়েছে বিশাল জেঠওয়া। এক বিকৃতমনস্ক ভয়ংকর ধর্ষক-খুনী চরিত্রে যে সাবলীল অভিনয় তিনি করেছেন, সেটা প্রথম ছবি হিসেবে অকুণ্ঠ প্রশংসার দাবী রাখে। বিশেষ করে তার চোখ নজর কাড়ে। একই সাথে অদ্ভুত সারল্য এবং সাইকোপ্যাথ খুনী – দু’টো সত্তা পাশাপাশি ধারণ করা চাট্টিখানি কথা নয় এবং এই ধরণের চরিত্রে পারফর্ম করা যথেষ্ট চ্যালেঞ্জিং। বিশাল তার প্রথম কাজ হিসেবে উৎরে গিয়েছে ভালোভাবেই। তা বলাই বাহুল্য।
কাহিনী সংক্ষেপ – রাজস্থানে সানি নামক এক বিকৃত মানসিকতাসম্পন্ন তরুণ খুনী লতিকা নামক এক মেয়েকে নিষ্ঠুরভাবে নির্যাতন ও ধর্ষণের পর হত্যা করে। এসপি শিবানী রায় ঘটনার তদন্তে নেমে একের পর এক প্রতিকূলতার সম্মুখীন হতে থাকে। একপর্যায়ে ঘটনার সাথে যোগ হয় রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা, যা শিবানীর ক্যারিয়ারের জন্যও অন্যতম হুমকি হিসেবে দাঁড়ায়। শেষ পর্যন্ত লড়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় শিবানী। সফল হবে কি শিবানী? সানি কি ধরা পড়বে শেষ পর্যন্ত?
ছবিতে যদিও নারীদের প্রতি সহিংস আচরণ প্রাধান্য পেয়েছে, তবে একই সাথে নারীদের ঘুরে দাঁড়ানোর বার্তাও রয়েছে। ভারত আজ বিশ্বে নারীদের জন্য সবচেয়ে অনিরাপদ দেশগুলোর একটি। ধর্ষণ-নারী নির্যাতনের দিক থেকেও শীর্ষে অন্যতম দেশটি। তাই ছবিটির বার্তা গ্রহণ করতে পারলে নিজেদের জীবনে ও মানসিকতায় পরিবর্তন আনতে পারবে দেশের নারী সমাজ, আশা করা যায়।

মতামত দিন

avatar